ঢাকা ০২:৪৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ বিজ্ঞপ্তী ::
সাপ্তাহিক যায় সময় পক্ষ থেকে লেখা আহবান
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার জনবান্ধব ও উন্নয়নের রোল-মডেল সরকার। এই সরকারের আমলে পার্বত্য এলাকার অর্থনৈতিক অবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকার পার্বত্য এলাকার যে উন্নয়ন করেছে তার সুফল পাচ্ছে পার্বত্যবাসী। প্রতিটি উপজেলায় সড়ক যোগাযোগসহ অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে আর আগামীতেও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।

শেখ হাসিনা ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়- বীর বাহাদুর

  • আপডেট সময় : ০৫:৪৩:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ অক্টোবর ২০২৩
  • / ২৩৭ বার পড়া হয়েছে

গত বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে বান্দরবানের থানচি উপজেলায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড, পার্বত্য জেলা পরিষদ ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) ও ক্রীড়া পরিষদের বাস্তবায়নে প্রায় ৩৩ কোটি ব্যয়ে ৩২টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে থানচি টাউন হলে স্থানীয় জনসাধারণের সাথে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির হিসাবে বক্তব্য রাখে পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর ।

পার্বত্যমন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আন্তরিকতা আর যোগ্য নের্তৃত্বের কারণে  এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ । এই সরকারে আমলে সমতলের সাথে পাল্লা দিয়ে পার্বত্য এলাকায় যে উন্নয়ন হয়েছে অন্য কোন সরকার দেশের এতটা উন্নয়ন করেনি।

 

তিনি আরো বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশ করতে হলে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই, আর আমাদের নতুন প্রজন্মকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে আমাদের সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। দেশের দরিদ্র ও ক্ষুধামুক্ত এবং স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে সকলকে আগামীতেও আওয়ামীলীগ সরকারের পাশে থাকার আহবান জানান পাবর্তমন্ত্রী বীর বাহাদুর (উশৈসিং) এমপি।

 

এসময় সহকারী পুলিশ সুপার মো.নুরুল আনোয়ার, থানচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাঃ আবুল মনসুর, থানচি উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং মারমা, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আসিফ রায়হান, পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী মো.জিয়াউর রহমান, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান ইউনিটের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মো.ইয়াছির আরাফাত, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো.জিয়াউল ইসলাম মজুমদারসহ বিভিন্ন সরকারী দফতরের উর্ধতন কর্মকর্তা এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার জনবান্ধব ও উন্নয়নের রোল-মডেল সরকার। এই সরকারের আমলে পার্বত্য এলাকার অর্থনৈতিক অবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকার পার্বত্য এলাকার যে উন্নয়ন করেছে তার সুফল পাচ্ছে পার্বত্যবাসী। প্রতিটি উপজেলায় সড়ক যোগাযোগসহ অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে আর আগামীতেও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।

শেখ হাসিনা ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়- বীর বাহাদুর

আপডেট সময় : ০৫:৪৩:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ অক্টোবর ২০২৩

গত বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে বান্দরবানের থানচি উপজেলায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড, পার্বত্য জেলা পরিষদ ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) ও ক্রীড়া পরিষদের বাস্তবায়নে প্রায় ৩৩ কোটি ব্যয়ে ৩২টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে থানচি টাউন হলে স্থানীয় জনসাধারণের সাথে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির হিসাবে বক্তব্য রাখে পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর ।

পার্বত্যমন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আন্তরিকতা আর যোগ্য নের্তৃত্বের কারণে  এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ । এই সরকারে আমলে সমতলের সাথে পাল্লা দিয়ে পার্বত্য এলাকায় যে উন্নয়ন হয়েছে অন্য কোন সরকার দেশের এতটা উন্নয়ন করেনি।

 

তিনি আরো বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশ করতে হলে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই, আর আমাদের নতুন প্রজন্মকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে আমাদের সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। দেশের দরিদ্র ও ক্ষুধামুক্ত এবং স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে সকলকে আগামীতেও আওয়ামীলীগ সরকারের পাশে থাকার আহবান জানান পাবর্তমন্ত্রী বীর বাহাদুর (উশৈসিং) এমপি।

 

এসময় সহকারী পুলিশ সুপার মো.নুরুল আনোয়ার, থানচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাঃ আবুল মনসুর, থানচি উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং মারমা, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আসিফ রায়হান, পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী মো.জিয়াউর রহমান, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান ইউনিটের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মো.ইয়াছির আরাফাত, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো.জিয়াউল ইসলাম মজুমদারসহ বিভিন্ন সরকারী দফতরের উর্ধতন কর্মকর্তা এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।